md torikul
আজ : ৭ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার প্রকাশ করা : মে ২৬, ২০২২

  • কোন মন্তব্য নেই

    বগুড়া সারিয়াকান্দির বহিষ্কৃত নেতার নেতৃত্বে চলছে যমুনা নদী হতে অবৈধ্ বালু উত্তোলন

     

    মোঃ মাসুদ ফারুক বাবলু সারিয়াকান্দি বগুড়া বিশেষ প্রতিনিধি ঃ

     

    বগুড়া জেলার সারিয়াকান্দি উপজেলায় বোহাইল ইউনিয়নের আওলাকান্দি ওয়ার্ড আওয়ামিলীগের বহিষ্কৃত সাংগঠনিক সম্পাদক নেতা মজনু খাঁ এর নেতৃত্বে আওলাকান্দি ঘাটে যমুনা নদী হতে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের চলছে মহাউসৎব।

     

    সরজমিনে গিয়ে জানা যায়, প্রায় ৬০ টি বলগেট নৌকা দিয়ে প্রতিদিন যামুনা নদী হতে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন সারিয়াকান্দি উপজেলার বোহাইল ইউনিয়নের আওলাকান্দি ওয়ার্ড

    আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত সাংগঠনিক সম্পাদক (নেতা মজনু খাঁ) কিছুদিন পূর্বে দল থেকে সরকারি চাল চুরির অপরাধে এই নেতাকে (মজনু খা) বোহাইল ইউনিয়নের আওলাকান্দি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক পদ থেকে বহিষ্কার করা হয় বলে জানা যায় ।

     

    অত্র এলাকাবাসী জানান, আওলাকান্দি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত সাংগঠনিক সম্পাদক নেতা মজনু খাঁ এর নির্দেশে বোহাইল ইউনিয়নের ফরিদ মোল্লা ও আরো বেশ কয়েকজনের নেতৃত্বে যমুনা নদী হতে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে চলেছে। এ যেন দেখার কেউ নেই। এলাকা বাসি আরো জানান বিভিন্ন সরকারি দফতরে অভিযোগ করা হলেও এতে কোন কাজ হয় না,কেউ সাহস করে বালু উত্তোলন করতে নিষেধ করলে এই বালু খেকোরা উত্তেজিত হয়ে তার উপর ম্যার মুখি আচারণ করে থাকেন। পাশাপাশি তাদের উপর উল্টো মামলা করার ভয়ভীতি প্রদর্শন ও করে থাকে বলে জানিয়েছেন তারা।

     

    সাংবাদিকরা বালু উত্তোলন কারী ফরিদ মোল্লার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ঐ সাংবাদিকদের জানান,ঈদের পর তিনদিন বালুু উত্তোলন বগুড়া সারিয়াকান্দির বহিষ্কৃত নেতার নেতৃত্বে চলছে যমুনা নদী হতে অবৈধ্ বালু উত্তোলন

     

    মোঃ মাসুদ ফারুক বাবলু সারিয়াকান্দি বগুড়া বিশেষ প্রতিনিধি ঃ

     

    বগুড়া জেলার সারিয়াকান্দি উপজেলায় বোহাইল ইউনিয়নের আওলাকান্দি সাংগঠনিক ইউনিয়নের বহিষ্কৃত নেতা মজনু খাঁ এর নেতৃত্বে আওলাকান্দি ঘাটে যমুনা নদী হতে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের চলছে যেন মহাউসৎব।

     

    সরজমিনে গিয়ে জানা যায়, প্রায় ৬০ টি বলগেট নৌকা দিয়ে প্রতিদিন যামুনা নদী থেকে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন সারিয়াকান্দি উপজেলার বোহাইল ইউনিয়নের আওলাকান্দি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত সাংগঠনিক সম্পাদক (নেতা মজনু খাঁ) কিছুদিন পূর্বে দল থেকে সরকারি চাল চুরির অপরাধে মজনু খাঁ কে বোহাইল ইউনিয়নের আওলাকান্দি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক পদ থেকে তাকে বহিষ্কার করা হয় বলে জানা যায় ।

     

    অত্র এলাকাবাসী জানান, আওলাকান্দি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত সাংগঠনিক সম্পাদক নেতা মজনু খাঁ এর নির্দেশে বোহাইল ইউনিয়নের ফরিদ মোল্লা ও আরো বেশ কয়েকজনের নেতৃত্বে যমুনা নদী হতে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে চলেছে। এ যেন দেখার কেউ নেই এলাকা বাসি আরো জানান বিভিন্ন সরকারি দফতরে অভিযোগ করা হলেও এতে কোন কাজ হয় না,কেউ সাহস করে বালু উত্তোলন করতে নিষেধ করলে এই বালু খেকোরা উত্তেজিত হয়ে ম্যার মুখি আচারণ করে থাকেন পাশাপাশি তাদের উপর উল্টো মামলা করার ভয়ভীতি প্রদর্শন করে থাকে বলে জানিয়েছেন তারা

     

    সাংবাদিকরা বালু উত্তোলন কারী ফরিদ মোল্লার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ঐ সাংবাদিকদের জানান,ঈদের পর তিনদিন বালুু উত্তোলন করে আসছিলাম ,এখন আর আমি বালু উত্তোলন করি না। বর্তমানে যার যার জমি থেকে সে সে বালু উত্তোলন করছে বলে তিনি তা স্বিকার করে বলেন।

     

    বালুমহল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন ২০১০ সনের ৬২ নং আইনে উল্লেহ্মিত আছে যে, (১) এই আইনের ধারা ৪ এ বর্ণিত কতিপয় ক্ষেত্রে বালু বা মাটি উত্তোলন নিষিদ্ধ সংক্রান্ত বিধান সহ অন্য কোন বিধান কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান অমান্য করিলে বা এই আইন বা অন্য কোন বিধান লংঘন করিয়া অথবা বালু বা মাটি উত্তোলনের জন্য বিশেষভাবে ক্ষমতাপ্রাপ্ত কর্তৃপক্ষের অনুমতি ব্যতিরেকে বালু বা মাটি উত্তোলন করিলে সেই ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী ব্যক্তিবর্গ (এক্সিকিউটিভ বডি) বা তাহাদের সহায়তাকারী কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাগণ অনূর্ধ্ব ২(দুই) বৎসর কারাদন্ড বা সর্বনিম্ন ৫০(পঞ্চাশ) হাজার টাকা হইতে ১০ (দশ) লক্ষ টাকা পর্যন্ত অর্থদন্ড বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হইবেন বলে উল্লেখিত আছে।

     

    সারিয়াকান্দি উপজেলার নির্বাহী অফিসার জনাব মোঃ রেজাউল করিম এর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, যদি যমুনা নদী থেকে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে থাকে তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী অবশ্যই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ,এখন আর আমি বালু উত্তোলন করি না। এখন যার যার জমি থেকে সে সে বালু উত্তোলন করছে বলে তিনি জানান।

     

    বালুমহল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন ২০১০ সনের ৬২ নং আইনে উল্লেহ্মিত আছে যে, (১) এই আইনের ধারা ৪ এ বর্ণিত কতিপয় ক্ষেত্রে বালু বা মাটি উত্তোলন নিষিদ্ধ সংক্রান্ত বিধান সহ অন্য কোন বিধান কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান অমান্য করিলে বা এই আইন বা অন্য কোন বিধান লংঘন করিয়া অথবা বালু বা মাটি উত্তোলনের জন্য বিশেষভাবে ক্ষমতাপ্রাপ্ত কর্তৃপক্ষের অনুমতি ব্যতিরেকে বালু বা মাটি উত্তোলন করিলে সেই ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী ব্যক্তিবর্গ (এক্সিকিউটিভ বডি) বা তাহাদের সহায়তাকারী কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাগণ অনূর্ধ্ব ২(দুই) বৎসর কারাদন্ড বা সর্বনিম্ন ৫০(পঞ্চাশ) হাজার টাকা হইতে ১০ (দশ) লক্ষ টাকা পর্যন্ত অর্থদন্ড বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হইবেন বলে উল্লেখিত আছে।

     

    সারিয়াকান্দি উপজেলার নির্বাহী অফিসার জনাব মোঃ রেজাউল করিম এর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, যদি যমুনা নদী থেকে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে থাকে তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী অবশ্যই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.