মঙ্গলবার , ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আরো
  6. ইসলামিক
  7. কবিতা
  8. কৃষি সংবাদ
  9. ক্যাম্পাস
  10. খাদ্য ও পুষ্টি
  11. খুলনা
  12. খেলাধুলা
  13. চট্টগ্রাম
  14. ছড়া
  15. জাতীয়

রূপগঞ্জে ৪৯ টি পূজা মণ্ডপে চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি

প্রতিবেদক
ঢাকার টাইম
সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২২ ১১:০১ পূর্বাহ্ণ

 

রূপগঞ্জ প্রতিনিধি হাফেজ মোমেনঃ

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সর্ব বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজাগুলোতে চলছে শেস মুহূর্তের প্রস্তুতি,মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু হতে এখনও কিছু দিন বাকী থাকলেও ঘরে ঘরে দেবী দুর্গার আগমনী বার্তা বয়ে বেড়াচ্ছে,দেবী দুর্গাকে স্বাগত জানাতে রূপগঞ্জ উপজেলার হিন্দু এলাকায় প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন মৃৎ শিল্পীরা ও রং তুলি শিল্পীরা,এবার রূপগঞ্জ উপজেলায় ৪৯টি মণ্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব পালিত হবে। জমজমাট এই পূজোর আয়োজনে সরেজমিনে দেখা যায়, মৃৎ শিল্পীরা কাদা-মাটি, খড়-কাঠ সংগ্রহ করে প্রতিমা তৈরির কাজ শেষ করে এখন চলছে রং তুলির কাজ। সকাল থেকে রাত অবধি চলছে এই কার্যক্রম,এখন শারদীয় দুর্গোৎসবে মেতে ওঠার অপেক্ষায় সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। এ উৎসবকে ঘিরে মৃৎ শিল্পী ও রং তুলি শিল্পীদের মাঝে দেখা দিয়েছে কর্ম ব্যস্ততা। দিন রাত কাজ করে শিল্পীদের হাতের নিপুণ ছোঁয়ায় তৈরি হচ্ছে প্রতিমা,যেন দম ফেলার সময় নেই কারিগরদের।প্রতিমা শিল্পী বিশ্বজিৎ বিশ্বাস বলেন, মা দুর্গার আগমনে আমাদের কাজের চাপ বেড়েছে, যেহেতু সময় ঘনিয়ে আসছে তাই আমাদের চাপও বেশী। গতবারও এমন চাপ ছিলো না আমাদের, তবে এবার প্রতিমা বানাতে আমাদের সকাল থেকে রাত পার হয়ে যাচ্ছে,এবার প্রতিমার চাহিদা ব্যাপক হারে বেড়েছে। অল্প সময়ে বেশী কাজ সামাল দিতে একটু হিমশীম খাচ্ছি বল্লে চলে। করোনা কালের সময় পার করে আমাদের কাছে প্রচুর প্রতিমা নেয়ার অর্ডার আসছে কিন্তু আমরা অল্প সময়ে সেগুলো পৌঁছেতে পারছি না।
বাঙালী উৎসবে বাঁচে। দুঃখ জরা যতই থাকুক, হাসি-আনন্দে কাটাতে চায়। আর তাই এখানে বারো মাসে তেরো পার্বণ। অন্যতম একটির নাম শারদীয় দুর্গোৎসব। বছর ঘুরে আবারও এসেছে সেই ক্ষণ। আর মাত্র কয়েক দিনের অপেক্ষা,এর পরই বেজে উঠবে ঢাক, কানে আসবে শঙ্খ ধ্বনি। সনাতন বিশ্বাস মতে,মহালয়ার দিন দেবী দুর্গা মর্ত্যলোকে পা রাখবেন। এদিন ভোরে মন্দিরে চন্ডীপাঠের মাধ্যমে দেবীকে আবাহন করা হবে।এবার দুর্গাদেবীর আগমন হবে হাতিতে চড়ে ও গমন হবে নৌকায় চরে। সনাতনী পঞ্জিকা অনুযায়ী, দুর্গোউৎসবের মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে আগামী ১অক্টোবর ষষ্ঠীর দিনে । ২ অক্টোবর দেবীর সপ্তমীবিহিত, ৩ অক্টোবর দেবীর মহাঅষ্টমীবিহিত, কুমারী পূজা, সন্ধি পূজা, ৪ অক্টোবর দেবীর নবমীবিহিত এবং ৫ অক্টোবর দশমীবিহিত পূজা সমাপন ও দর্শন বিসর্জন এবং সন্ধ্যা আরত্রিকের পর প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হবে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সর্ব বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজা।দিন তারিখ মাথায় রেখেই চলছে প্রস্তুতি। শারদীয় দুর্গাপূজা উজ্জাপন রূপগঞ্জ উপজেলা কমিটির সভাপতি বিমল চন্দ্র দাস বলেন, আর কিছুদিন বাদেই সনাতন সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গোৎসব শুরু হতে যাচ্ছে।পূজার সময় যত ঘনিয়ে আসছে ততই বাড়ছে প্রতিমা কারিগরদের ব্যস্ততা।দম নেওয়ারও সময় নেই তাদের। আর পূজাকে ঘিরে রূপগঞ্জ উপজেলায় চলছে রাত দিন প্রতিমা তৈরির কাজ। উপজেলা পরিষদের তথ্যমতে, এবার এ উপজেলায় ৪৯টি মন্দিরে দূর্গাপূজা পালিত হবে। এ উপলক্ষ্যে নেওয়া হবে বাড়তি নিরাপত্তা। সরেজমিনে উপজেলার ভুলতা, হাউলিপাড়া, দেইলপাড়া, মুড়া পাড়,নয়ামাটিসহ বেশ কিছু এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, কারিগরেরা প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে।প্রতিমা শিল্পীদের নিপুণ আঁচড়ে তৈরি হচ্ছে এক একটি প্রতিমা। নিজের সন্তানের মতো অতি ভালোবাসায় তৈরি করা হচ্ছে দুর্গা, সরস্বতী, লক্ষ্মী, গণেশ, কার্তিক, অসুর ও শিবের মূর্তি। কথা হয় কারিগর সুশান্ত পালের সঙ্গে,তিনি বলেন, রাত দিন কষ্ট করে প্রতিমা বানাতে হয়। তারপরও ভাল লাগে,একটা সুখ অনুভব করি।রূপগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির জয়েন্ট সেক্রেটারি দিগেন বিশ্বাস বলেন, রূপগঞ্জে নিরাপত্তা থাকায় প্রতি বছরই পূজা মন্ডপের সংখ্যা বাড়ছে,এবার ৪৯ টি মন্দিরে প্রতিমা তৈরির কাজ চলছে,এদিকে দুর্গাপূজা সুষ্ঠু ভাবে সম্পন্ন করতে সভা করেছে প্রশাসন।রূপগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ এ এফ এম সায়েদ বলেন, দুর্গাপূজার উৎসবটা বাংলাদেশে খুব গুরুত্বপূর্ন একটা ইভেন্ট। একটি কমিউনাল ক্লেশের মাধ্যমে বাংলাদেশকে ছোট করার জন্য, সরকারকে হেও করার জন্য কেও না কেও বসে আছে। তো আমরা এখানে সবার কাজ হচ্ছে ভালো ভাবে একটি উৎসব জাতিকে উপহার দেয়া। যাতে আন্তর্জাতিক ভাবে আমাদের ছোট হতে না হয়।
নারায়ণগঞ্জ জেলার এ এসপি গ সার্কেল আবির হোসেন বলেন, আমরা সামাজিক সম্প্রতিতে বিশ্বাস করি, আমরা ধর্মীয় সম্পৃতিতে বিশ্বাস করি। এটা শুধু আমি চাইলেই হবে না, সকলকে বিশ্বাস করতে হবে। কেউ যদি উস্কানি মূলক কিছু করে ফেলে তাহলে তৎক্ষনাত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে অবগত করুন।এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনের সংসদ সদেস্য পাট ও বস্ত্র মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী (বীরপ্রতিক) বলেন, রূপগঞ্জে হিন্দু-মুসলিম মিলে মিশেই উৎসব পালন করে থাকে। প্রতিবছরের ন্যায় এবারও জাকজমকপূর্ণভাবে দূর্গাপুজা উযযাপন করা হবে। নিরাপত্তা¦র বিষয়ে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সর্তক দৃষ্টিসহ করা নিরাপত্ত্বার ব্যবস্থা করবে।

সর্বশেষ - সারা দেশ

আপনার জন্য নির্বাচিত
%d bloggers like this:

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট