শুক্রবার , ৪ নভেম্বর ২০২২ | ১৬ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ
  2. অভিযোগ
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আগুন দুর্ঘটনা
  6. আটক
  7. আন্তর্জাতিক
  8. আরো
  9. আলোচনা সভা
  10. ইসলামিক
  11. উদ্ধার
  12. কবিতা
  13. কমিটি গঠন
  14. কৃষি সংবাদ
  15. ক্যাম্পাস

সিংগাইরে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে আত্মসাৎ ও বিভিন্ন ধরনের অভিযোগ ৷

প্রতিবেদক
ঢাকার টাইম
নভেম্বর ৪, ২০২২ ৯:৩১ পূর্বাহ্ণ

 

স্টাফ রিপোর্টার :-

মানিকগঞ্জের ‘সিংগার থানা’ যা কি না জেলার দ্বিতীয় পৌর অঞ্চল ৷ এটি জেলার মধ্যে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি থানা ৷ এ থানার তালেবপুর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের সদস্য মোঃ হুমায়ুন কবিরের বিরুদ্ধে উঠেছে নানা প্রকারের অভিযোগ ৷
যা ইউপি সদস্যদের ভাবমূর্তি নষ্টকারীর অন্যতম একটি কারণ ৷
এমন অভিযোগ উত্থাপন করেছেন এলাকার সাধারণ কিছু জনগণ ৷

গত কয়েকদিন আগে (২৭-১০-২০২২ইং)তালিপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের বসবাসকারী উম্মে কুলসুম নামে এক নিরীহ পরিবারের স্ত্রী তার বিরুদ্ধে অভিযোগে জানান , স্থানীয় মেম্বার হুমায়ুন কবির তার থেকে ৫ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেছে ৷ তিনি বলেন , “প্রায় ১০ বছর আগে ইরতা কাশিমপুর গ্রামে ময়নাল হকের আধা বিঘা জমি ৩৫ হাজার টাকা ধারে রেখে আমরা ভোগ করতে থাকি ৷ আমরা গরীব মানুষ, আমাদের জমি নেই ৷ অন্যের জায়গায় বসবাস করে আছি দীর্ঘদিন যাবত ৷
এ বছর , ময়নাল হক তার টাকা ফেরত দিয়ে জমি ফেরত চাচ্ছে ৷ তিনি বলেন, “ মেম্বারের কাছে আমি ৩৫ হাজার টাকা জমা দিয়েছি ৷ অতএব আপনি টাকা নিয়ে আমার জমির কাগজপত্র ফেরত দিন ৷”
তার কথার প্রেক্ষিতে হুমায়ুন কবির মেম্বারের বাড়ি টাকা চাইতে গেলে সে আমাকে ৩০ হাজার টাকা ফেরত দেয় এবং বাকি ৫০০০ টাকা নিজের কাছে রেখে দেয় এবং বলে কয়েকদিন পরে দিবে ৷ কয়েকদিন পর টাকা চাইতে গেলে, সে নয় ছয় বুঝিয়ে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং বাড়ি থেকে বের করে দেয় ৷
আমি অনেক বিনয় করেছি ৷ পাঁচ হাজার টাকায় আমার এক মাসের সংসার ভাল চলে ৷ তারপর স্থানীয় ময়মুরুব্বিদের কাছে এ বিষয়ে অভিযোগ করি ৷ তারা এ বিষয়ে মেম্বারকে বললে মেম্বার তার দলবল লোকজন নিয়ে আমার বাড়িতে জোরপূর্বক ঢুকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে ৷
আমার স্বামী ছানোয়ার পাশে দাঁড়িয়ে ছিল ৷ তাকে ধরে উল্টাপাল্টা ঘুসি মারে এবং কান বরাবর লোহার রড দিয়ে বাড়ি মারে ৷ এতে করে আমার স্বামীর কান থেকে অঝরে রক্ত ঝরতে থাকে ৷ আমি আমার স্বামীকে বাঁচাতে গেলে তারা আমার কাপড়-চোপড় ধরে টানাটানি করে এবং বিবস্ত্র করার চেষ্টা করে ৷ আমি কোন মতে কাপড়চোপড় সামলে স্বামীর মাথায় পানি ঢালিতে গেলে তারা পানির কলসিকে লাথি দিয়ে ফেলে দেয় ও বলে, “ ও ভাব ধরেছে, ওর কিছু হয়নি ৷”
আশেপাশে লোকজন জড়ো হলে তারা বাড়ি ত্যাগ করে চলে যায় ৷ তারপর আমার স্বামীকে স্থানীয় ফার্মেসি থেকে ডাক্তার দেখিয়ে সদরে নিয়ে যাই ৷ রোগীর অবস্থা বেগতিক দেখে তারা ঢাকায় রিফার করে ৷
আমি গরিব মানুষ , অনেক কষ্টে টাকা সংগ্রহ করে স্বামীর চিকিৎসা করি ৷
এ বিষয়ে সিংগাইর থানায় অভিযোগ দায়ের করলে তারা কোন প্রকার পদক্ষেপ নেয়নি ৷ অতঃপর বাধ্য হয়ে আমার শ্বশুর মোঃ আব্দুস সুবহান কোর্টে মামলা করে ৷ যার সি আর মামলা নং ৮৭০ (সিং)২০২২ ৷ ”
তিনি বলেন , হুমায়ুন কবির মেম্বার পরপর দুইবার নির্বাচিত হলো ৷
তার অনেক ক্ষমতা ,অনেক টাকা ,অনেক প্রভাব ৷ যার কারণে তার বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায় না ৷ তার বিরুদ্ধে কেউ অভিযোগ করতে গেলেই ওই ব্যক্তির নামে হুমায়ুন মেম্বার মাদক মামলা অথবা বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধামকি দিয়ে তাকে নিস্তব্ধ করে দেয় ৷
সে বলে, “আমি অনেক ভালো মানুষ ৷” কিন্তু সে যে কোন ধরনের লোক তা এলাকার নিরীহ লোকদেরকে নিরিবিরি জিজ্ঞাসা করলে আপনারা জানতে পারবেন ৷ সে সর্বদা ধনীদের পক্ষ নিয়ে বিচারাচার করে গরিব মানুষের ক্ষতি করে থাকে ৷ তার ফল আমি নিজেই ৷ যে পাঁচ হাজার টাকার লোভ সামলাতে পারে না , সে যে আর কি কি করতে পারে তা আপনারাই ভাবুন ৷”
স্থানীয়দের দাবি , অতিসত্বর এ মেম্বারের মামলার তদন্ত করে সুষ্ঠু ও সঠিক বিচার করা হোক ৷ যাতে করে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি গ্রামের অসহায় মানুষের পূর্ণ আস্থা থাকে ৷

সর্বশেষ - সারা দেশ

আপনার জন্য নির্বাচিত
%d bloggers like this:

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট